তরুণ আফিফ জেতালেন বাংলাদেশকে – BD Sports 24
  • তরুণ আফিফ জেতালেন বাংলাদেশকে

    September 14th, 2019

    ক্রীড়া প্রতিবেদক

    বিডিস্পোর্টস২৪৫ ডটকম

    ঢাকা, ১৪ সেপ্টেম্বর: জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের উদ্বোধনী ম্যাচে মাত্র ৬০ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ম্যাচটা বলতে গেলে হেরেই গিয়েছিল স্বাগতিক বাংলাদেশ। কিন্তু প্রায় হেরে যাওয়া ম্যাচকে জয়ে পরিণত করেন ১৯ বছর বয়সী তরুণ ক্রিকেটার আফিফ হোসেন। ৮ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে বাঁহাতি আফিফ হোসেনের ২৬ বলে ৫২ রানের অসাধারণ ইনিংসে ২ বল বাকি থাকতেই ৩ উইকেটে ১৪৭ রান করে বাংলাদেশ। ফলে ৩ উইকেটের স্বস্তির জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে স্বাগতিকরা।

     

    বৃষ্টির কারণে খেলা ২ ওভার কমিয়ে ১৮ ওভার করা হয়। জিম্বাবুয়ের করা ১৪৪ রানের জবাবে শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে বাংলাদেশ। মাত্র ৬০ রান তুলতেই প্রথম সারির ৬ ব্যাটসম্যান সাজঘরে ফেরত যান। এর মধ্যে ওপেনার লিটন দাস (১৯), সাব্বির (১৫) ও মাহমুদুল্লাহ ১৪ রান করলেও ব্যাট হাতে পুরোপুরি ব্যর্থ ছিলেন সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহীম। সৌম্য ৪, সাকিব ১ রান করলেও মুশফিকুর রহীম রানের খাতা খুলতে পারেননি।

     

    দলের এ অবস্থায় হাল ধরেন মোসাদ্দেক হোসেন ও তরুণ আফিফ হোসেন। এই জুটি জিম্বাবুয়ের বোলারদের বেধড়ক পেটাতে থাকেন। মাত্র ৪৭ বলে ৮২ রানের পার্টনারশিপ গড়েন এই দুই ব্যাটসম্যান। আফিফ হোসেন ২৬ বলে ৮ বাউন্ডারি ও একটি বিশাল ছক্কার সাহায্যে ৫২ রান করে আউট হন। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ম্যাচে এসেই হাফ সেঞ্চুরি করার নজির গড়েন তরুণ আফিফ। প্রথম ম্যাচে শ্রীলংকার বিপক্ষে ০ রানে বিদায় নিয়েছিলেন আফিফ।

     

    আফিফ যখন বিদায় নেন দলের রান তখন ১৪২। জয় থেকে তখন মাত্র ৩ রান দূরে বাংলাদেশ। ক্রিজে আসেন মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। প্রথম বলেই উড়িয়ে মেরে ২ রান নিয়ে স্কোর সমান করেন সাইফুদ্দিন। জিম্বাবুয়ের বোলার মাদজিভার করা পরের বলটি সীমানাছাড়া করে দলকে জয়ের বন্দরে ভিড়ান মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। মোসাদ্দেক হোসেন ২৪ বলে অপ. ৩০ এবং সাইফুদ্দিন ২ বলে ৬ রানে অপরাজিত থাকেন।

     

    জিম্বাবুয়ের বোলারদের মধ্যে কাইল জার্ভিস, চাতারা ও মাদজিভা দু’টি করে এবং রায়ান বুরি নেন এক উইকেট।

     

    এর আগে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ১৮ ওভারে ৫ উইকেটে ১৪৪ রান করে জিম্বাবুয়ে। ৬৩ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়েছিল জিম্বাবুয়ে। কিন্তু ষষ্ঠ উইকেটে রায়ান বুরি ও মুটুমবুদজি ৬৩ বলে অপরাজিত ৮১ রানের পার্টনারশিপ গড়লে ১৪৪ রান করতে সক্ষম হয় জিম্বাবুয়ে।

     

    জিম্বাবুয়ের রায়ান বুরি ৩২ বলে ৫৭ এবং মুটুমবুদজি ২৬ বলে ২৭ রানে অপরাজিত থাকেন। এছাড়া অধিনায়ক হ্যামিলটন মাসাকাদজা ৩৪ এবং আরভিনের ব্যাট থেকে আসে ১১ রান।

     

    স্বাগতিক বোলারদের মধ্যে তাইজুল ইসলাম, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান এবং মোসাদ্দেক হোসেন একটি করে উইকেট নেন।

     

    ম্যাচসেরা হন বিজয়ী দলের আফিফ হোসেন।

     

     

    বিডিস্পোর্টস২৪৫ ডটকম/বিকে

     

     


অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

স্পোর্টস ফ্যাশন


প্রবাসী তারকা

    No posts here...

জেলা ক্রীড়া সংস্থা

বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  


ক্রীড়া সাহিত্য

ব্যাডমিন্টন

আরচ্যারি

গল্‌ফ

ভারোত্তোলন

মহিলা ক্রীড়া সংস্থা

    No posts here...