ধাওয়ান-উইলিয়ামসন নৈপুণ্যে প্লে-অফে সানরাইজার্স – BD Sports 24
  • ধাওয়ান-উইলিয়ামসন নৈপুণ্যে প্লে-অফে সানরাইজার্স

    May 11th, 2018

    ক্রীড়া ডেস্ক

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম

    নয়া দিল্লি, ১১ মে: শিখর ধাওয়ান এবং অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের ব্যাটিং নৈপুণ্যে এবারের আইপিএলে প্রথম দল হিসেবে প্লে-অফ নিশ্চিত করেছে অপ্রতিরোধ্য সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। প্রথম তিন ম্যাচ জেতার পর পরবর্তী ২ ম্যাচ হেরেছিল হায়দরাবাদ। এরপর টানা ছয় ম্যাচ জিতে ১১ খেলায় ৯ জয়ে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে এককভাবে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে রয়েছে তারা।

    শিখর ধাওয়ান এবং কেন উইলিয়ামসন দ্বিতীয় উইকেটে অবিচ্ছিন্ন ১৭৬ রানের রেকর্ড পার্টনারশিপ গড়লে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসকে ফিরতি ম্যাচে ৯ উইকেটে পরাজিত করেছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। সেইসাথে বিফলে গেলো রিসাব পান্টের ৬৩ বলে ১২৮ রানের দুর্দান্ত ইনিংসটি। প্রথম সাক্ষাতে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ জিতেছিল ৭ উইকেটে।

    দিল্লির করা ১৮৭ রানের জবাবে ব্যাট করত নেমে ১৫ রানে প্রথম ‍উইকেট হারায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ৯ বলে ১৪ রান করা ওপেনার অ্যালেক্স হলস হার্শাল প্যাটেলের বলে এলবিডব্লিউ’র ফাঁদে পা দেন।

    এরপর অপর ওপেনার শিখর ধাওয়ানের সাথে জুটি বাধেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। এই দুই ব্যাটসম্যান ১০২ বলে ১৭৬ রানের রেকর্ড পার্টনারশিপ গড়ে অবিচ্ছিন্ন থাকলে ৭ বল বাকি থাকতেই ১ উইকেটে ১৯১ রান স্কোরবোর্ডে জমা করে হায়দরাবাদ। ৯ উইকেটে জিতে যায় তারা। সেইসাথে এবারের আইপিএলে প্রথম দল হিসেবে প্লে-অফে খেলা নিশ্চিত করে। অপরদিকে এ ম্যাচ হেরে যাওয়ায় প্রথম দল হিসেবে প্লে-অফে খেলার আশা একেবারেই শেষ হয়ে গেলো দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের।

    শিখর ধাওয়ান এ আসরে দ্বিতীয় ফিফটি এবং কেন উইলিয়ামসন ষষ্ঠ ফিফটির দেখা পান আজ। ধাওয়ান ৫০ বলে ৯ বাউন্ডারি ও ৪ ছক্কায় অপ. ৯২ এবং কেন উইলিয়ামসন ৫৩ বলে ৮ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় ৮৩ রানে অপরাজিত থাকেন।

    দ্বিতীয় উইকেটে সবচেয়ে বেশি রানের পার্টনারশিপ ছিল ১২৯ রানের। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের সূর‌্যকুমার যাদব ও ইশান কিশান ২২ এপ্রিল  রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে তা করেছিলেন।

    এর আগে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে ফিরতি ম্যাচে রিসাব পান্টের শতরানের ওপর ভর করে ৫ উইকেটে ১৮৭ রান সংগ্রহ করে দিল্লি ডেয়ারডেভিলস। রিসাব পান্ট ১২৮ রান করে অপরাজিত থাকেন।

    চতুর্থ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে দিল্লির বাঁহাতি তরুণ ব্যাটসম্যান রিসাব পান্ট হায়দরাবাদের বোলারদের বেধড়ক পিটিয়ে ৬৩ বলে ১৫টি চার ও ৭টি ছক্কার সাহায্যে ১২৮ রানে অপরাজিত ইনিংস খেলেন। এটি এবারের আইপিএলের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত স্কোর। আর আইপিএলের তৃতীয় শতরান এটি। আর ভারতীয়দের মধ্যে প্রথম।

    এর আগে এবারের আইপিএলে প্রথম সেঞ্চুরি করেন কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের ওপেনার ক্রিস গেইল (১০২ রান)। দ্বিতীয় শতরানটি করেছিলেন চেন্নাই সুপার কিংসের শেন ওয়াটসন (১০৬ রান)। এই দুই ওভারসিস প্লেয়ারকে পেছনে ফেলে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের ইনিংস নিজের করে নেন রিসাব পান্ট।

    স্পিনার সাকিবের ঘূর্ণিতে ২১ রানে ২ উইকেট খোয়ায় দিল্লি। পৃথ্বি শ’ ৯ এবং জেসন রয় ১১ রান করে আউট হন। তৃতীয় উইকেটে আয়ার ও পান্ট ২২ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। অধিনায়ক আয়ার ৩ রান করে রান আউট হয়ে বিদায় নেন।

    চতুর্থ উইকেটে রিসাব পান্ট হার্শাল প্যাটেলকে সাথে নিয়ে ৫৫ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। হার্শাল প্যাটেল করেন ১৭ বলে ২৪ রান। পঞ্চম উইকেট জুটিতে রিসাব পান্ট ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ৬৩ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। ম্যাক্সওয়েল বিদায় নেন ৯ রান করেন।

    ম্যাক্সওয়েল যখন বিদায় নেন দলীয় রান তখন ১৬১। খেলা তখন বাকি মাত্র ৫ বল। হায়দরাবাদের পেসার ভুবনেশ্বর কুমারের শেষ ৫ বলে ২ চার ও টানা তিন ছক্কায় ২৬ রান যোগ করেন রিসাব পান্ট। দল পৌঁছে যায় ততক্ষণে ১৮৭ রানে। আর রিসাব পান্ট অপরাজিত থাকেন ১২৮ রানে।

    হায়দরাবাদের সাকিব আল হাসান দুটি এবং ভুবনেশ্বর কুমার নেন এক উইকেট। বাকি দুটি রান আউট।

    ম্যাচসেরা হন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ওপেনার শিখর ধাওয়ান।

     

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম/বিকে


অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

স্পোর্টস ফ্যাশন


প্রবাসী তারকা

জেলা ক্রীড়া সংস্থা

বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  


ক্রীড়া সাহিত্য

ব্যাডমিন্টন

আরচ্যারি

গল্‌ফ

ভারোত্তোলন

মহিলা ক্রীড়া সংস্থা