প্রথমবারের মতো ওমেন্স এশিয়া কাপের ফাইনালে বাংলাদেশ – BD Sports 24
  • প্রথমবারের মতো ওমেন্স এশিয়া কাপের ফাইনালে বাংলাদেশ

    June 9th, 2018

    ক্রীড়া ডেস্ক
    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম
    কুয়ালালামপুর, ৯ জুন: প্রথমবারের মতো ওমেন্স এশিয়া কাপে ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। আজ কুয়ালালামপুরের কিনরারা একাডেমি ওভাল মাঠে বাংলাদেশ তাদের রাউন্ড রবিন লিগের শেষ খেলায় মালয়েশিয়াকে ৭০ রানের বিশাল ব্যবধানে পরাজিত করে দ্বিতীয় দল হিসেবে ফাইনালে পৌঁছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল।
    বাংলাদেশের করা ৬ উইকেটে ১৩০ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে মালয়েশিয়ার ইনিংস ৯ উইকেটে ৬০ রানের বেশি এগুতে না পারায় ৭০ রানে জিতে যায় বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল।
    বাংলাদেশ তাদের প্রথম খেলায় শ্রীলংকার কাছে ৬ উইকেটে হারলেও পরের ৪ ম্যাচ টানা জয়ের ফলে ফাইনালে পৌঁছে। দ্বিতীয় খেলায় পাকিস্তানকে ৭ উইকেটে, তৃতীয় খেলায় ভারতকে ৭ উইকেটে, চতুর্থ খেলায় থাইল্যান্ডকে ৯ উইকেটে পরাজিত করে বাংলাদেশ। ফলে ৫ খেলায় ৪ জয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে ফাইনালে পৌঁছে।
    ফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ গত ৬ আসরের সবকটিতে চ্যাম্পিয়ন হওয়া শক্তিশালী ভারত। রাউন্ড রবিন লিগ পর্বে বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো ভারতকে ৭ উইকেটে পরাজিত করেছিল।
    ২০০৮ সালে প্রথমবারের মতো ওমেন্স এশিয়া কাপের আসরে অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। ওই আসরে চতুর্থ হয় তারা। ২০১২ সালে সেমিফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে বাংলাদেশে। সেবার সেমিফাইনালে পাকিস্তানের সাথে ৬ উইকেটে পরাজিত হয়ে ফাইনালে যেতে ব্যর্থ হয়। ২০১৬ সালে চতুর্থ হয় বাংলাদেশ।
    টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ ৪ উইকেটে ১৩০ রান স্কোরবোর্ডে জমা করে। উদ্বোধনী জুটিতে আয়শা রহমান ও শামীমা সুলতানা ৫৯ রানের পার্টনারশিপ গড়ে দারুণ সূচনা এনে দেন। আয়শা রহমান ৩১ রান করে আউট হন। দ্বিতীয় উইকেটে ফারজানা হক ও শামীমা সুলতানা ২৭ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। ফারজানা হক ৭ রান করে বিদায় নেন। স্কোরবোর্ডে আর ১ রান যোগ করতেই অর্থাৎ ৮৭ রান আউট হন ওপেনার শামীমা সুলতানা। ৪৩ রান করেন শামীমা সুলতানা।
    চতুর্থ উইকেটে সানজিদা ইসলাম ও ফাহিমা খাতুন ৩৬ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। সানজিদা ইসলাম দুর্ভাগ্যজনক রান আউট হওয়ার আগে করেন ১২ বলে ১৫ রান। ৫ নম্বরে ব্যাট করতে নামা ফাহিমা খাতুনের ৩টি চারের সাহায্যে ঝড়ো গতির ১২ বলে অপ. ২৬ রানের কল্যাণে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৩০ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল।
    জবাবে ব্যাট করতে নেমে মালয়েশিয়ার বাংলাদেশের বোলার রুমানা আহমেদের মারাত্মক বোলিংয়ে ৯ উইকেটে ৬০ রান স্কোরবোর্ডে জমা করে। ফলে ৭০ রানে জিতে যায় সালমা-রুমানারা। রুমানা আহমেদের বোলিং বিশ্লেষণ: ৪-১-৮-৩। এছাড়া জাহানারা আলম, সালমা খাতুন, নাহিদা আক্তার ও খাদিজাতুল কুবরা একটি করে উইকেট নেন।
    ম্যাচসেরা হন বাংলাদেশের ওপেনার শামীমা সুলতানা।
    আগামীকাল ১০ জুন রোববার কুয়ালালামপুরের কিনরারা ওভাল একাডেমি মাঠে ফাইনালে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ-ভারত।

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম/বিকে


অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

স্পোর্টস ফ্যাশন


প্রবাসী তারকা

জেলা ক্রীড়া সংস্থা

বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  


ক্রীড়া সাহিত্য

ব্যাডমিন্টন

আরচ্যারি

গল্‌ফ

ভারোত্তোলন

মহিলা ক্রীড়া সংস্থা