বঙ্গবন্ধু অনূর্ধ্ব-১৭ ফুটবলের নয়া চ্যাম্পিয়ন ঝিনাইদহ পৌরসভা – BD Sports 24
  • বঙ্গবন্ধু অনূর্ধ্ব-১৭ ফুটবলের নয়া চ্যাম্পিয়ন ঝিনাইদহ পৌরসভা

    September 23rd, 2018

    এলিস হক, ঝিনাইদহ হতে

    ক্রীড়া ডেস্ক

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম

    ঝিনাইদহ, ২৩ সেপ্টেম্বর: ঝিনাইদহ জেলা পর্যায়ের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল অনূর্ধ্ব-১৭ টুনামেন্টের নয়া চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে ঝিনাইদহ পৌরসভা। রানার্স আপ হয়েছে শৈলকুপা উপজেলা দল।

    গত ২১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বিকেল ৪.৩০টায় প্রতিযোগিতার শেষদিনে বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান স্টেডিয়ামে ফাইনাল খেলায় ঝিনাইদহ পৌরসভা ফুটবল একাদশ টাইব্রেকারে ৩-১ গোলে শৈলকুপা উপজেলা ফুটবল একাদশ দলকে পরাজিত করে। ফাইনাল খেলার নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কোনো গোল না হওয়ায় টাইব্রেকার গড়ায়। টাইব্রেকারে বিজয়ী ঝিনাইদহ পৌরসভা ফুটবল একাদশের পক্ষে ১১ নম্বর জার্সিধারী সাইফুল, ৪ নম্বর জার্সিধারী দলীয় অধিনায়ক রিয়াজ ও ২ নম্বর জার্সিধারী আব্দুল জব্বার এবং বিজিত শৈলকুপা উপজেলা একাদশের ১২ নম্বর জার্সিধারী দলীয় অধিনায়ক শুভ লস্কর গোল করেন। তবে শৈলকুপার ৩ নম্বর জার্সিধারী মুস্তাফিজুর ও ৬ নম্বর জার্সিধারী জিন্নাহ বল পোস্টের বাইরে মেরে নিজ দলের দর্শকদের হতাশ করেন।

     

    খেলা নিয়ে শুরু করার বিড়ম্বনা..আহসান উদ্দীনের আফাঙ্গীরের আপোষহীনতা…কোচদের চেঁচামেচি..

    খেলা শুরু করার জন্য প্রায় আধ ঘণ্টা বিলম্বিত হয়। উভয় দলের অধিক বয়স্ক ও বহিরাগত খেলোয়াড় নিয়ে পরস্পরের অভিযোগ আনা হলে টেকনিক্যাল কমিটির নজরে আসে। টেকনিক্যাল কমিটির সদস্য আহসান উদ্দীন আফাঙ্গীর উভয় দলের ২ জন খেলোয়াড়ের অবৈধতা নিয়ে প্রথমে জেলা প্রশাসক ও পৌর মেয়রের কাছে দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

    উভয় দলের কোচ ও ম্যানেজারদের উদ্দেশ্যে জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ কিছু ব্যাপারে মীমাংসার চেষ্টা চালান। ঝিনাইদহ পৌরসভার ৭ নম্বর জার্সি আখিরুল ও শৈলকুপার ১১ নম্বর জার্সি হযরতের বৈধকরণ ছিল না এই আনীত অভিযোগের প্রেক্ষিতে উভয় দল মাঠে খেলোয়াড় নামিয়েও না খেলার দিকে টাল বাহানা করে এবং এ নিয়ে মাঠের উত্তর প্রান্তে শৈলকুপা উপজেলার সমর্থকরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে উত্তর গ্যালারিতে।

     

    বার বার শুরু করার তাগিদ এমপি, ডিসি ও মেয়রের…কিন্তু নট নড়ন চড়ন কোচেরা…

    ঝিনাইদহের এমপি আব্দুল হাই, পৌরমেয়র সাইদুল করিম মিন্টু ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সেক্রেটারি জীবন কুমার বিশ্বাস বার বার কর্ণপাতের পরেও কোনো কিছুতেই রাজি করানো যায়নি। জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় শেষ পর্যন্ত উভয় দলের কোচ ও ম্যানেজাররা আপোষে রাজি হন এবং পৌরসভার আখিরুল ও শৈলকুপার হযরতকে মাঠের বাইরে পাঠিয়ে দেন এবং কাক্সিÿত ফাইনালটি ৪টার খেলা শুরু হয় বিকাল সাড়ে বিকেল ৪টার পর এবং লম্বা বাঁশি বাজিয়ে শুরু করেন রেফারি শাহ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ

     

    অবশেষে বিলম্বিত ফাইনাল খেলা শুরু…

    খেলার শুরুতেই শৈলকুপা উপজেলা দলের আক্রমণভাগের খেলোয়াড়েরা সমঝোতার মাধ্যমে দলীয় এ্যাটাকিং থার্ডে গিয়ে উত্তেজনার সৃষ্টি করেন। শৈলকুপা উপজেলা দল ৬টি ফুল চান্স ও ৩টি হাফ চান্স এবং ৫টি পজিটিভ এ্যাটাক চালায়। পক্ষান্তরে ঝিনাইদহ পৌরসভা দল ৮টি ফুল চান্স ও ১টি হাফ চান্স এবং ৩টি পজিটিভ এ্যাটাক চালিয়েছে। তুলনার বিচারে শৈলকুপা উপজেলা ফাইনালে যথেষ্ট ভালো খেলা উপহার দিয়েছে।

    উত্তর গ্যালারিতে শৈলকুপার দর্শকের ঠাসায় ভর্তি…উত্তেজনার পারদ বাড়ছিল…

    শুক্রবার দিন সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান স্টেডিয়ামে প্রচুর দর্শকের সমাগম ঘটে। উত্তর গ্যালারীতে অধিকাংশ দর্শকই ছিলেন শৈলকুপার সমর্থক। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ জাতীয় ফুটবল প্রতিযোগিতার জেলা পর্যায়ের ফাইনালের শিরোপা লড়াইয়ে উভয় খেলার খেলার চেয়ে উভয় খেলোয়াড়েরা দৈহিক শক্তি প্রয়োগ করে খেলেন। বার বার অপ্রত্যাশিত ফাউলের প্রবণতা দেখা দিলে গ্যালারীতে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। দফায় দফায় উভয় দলের খেলোয়াড়েরা আহত হলে খেলা সাময়িকভাবে বন্ধ ছিল।

    উভয়ার্ধে পরিকল্পিত আক্রমণ রচনা সব মিলিয়ে ঝিনাইদহ পৌরসভা দল ১৪ বার এবং শৈলকুপা উপজেলা দল ১৮ বার চালিয়েও গোল আদায় করতে পারেনি।

    শেষ ১০ মিনিটের ঝটিকা আক্রমণ দুই দলের খেলোয়াড়েরা…শৈলকুপার নির্বাহী কর্মকর্তার মাথায় হাত…

    খেলার শেষ ১০ মিনিট ছিল উভয় দলের শ্বাসরোধী টান টান অথচ ঢেউয়ের মতো তীব্র উত্তেজনায় ঠাসা। দুই দলের খেলোয়াড়েরা প্রতি মুহূর্তে চাপে রাখতে প্রবল ঝটিকা বেগে আক্রমণ চালিয়েছেন।

    এক পর্যায়ে ক্রীড়াভাষ্যকার ও ক্রীড়া সংগঠক জয়নাল আবেদীন প্রতিবেদককে বলিয়ে শোনান…‘দেখুন এলিস সাহেব, মঞ্চের সামান্য পাশে বসেছিলেন শৈলকুপা উপজেলার নির্বাহী ওসমান গণি। তিনিও বসে না থেকে একটানা ৪/৫ মিনিট পর পর বসেন আবার উঠেন…তাকেও দেখা গেছে তাঁর চোখে মুখে রাজ্যের টেনশনে…দুই হাতে বার বার মাথায় হতাশার ভঙ্গিতে আছড়ে পড়েন আর কী!!’

     

    ফাইনাল খেলা শেষে ট্রফি বিতরণে এমপি আবদুল হাই…

    ফাইনাল খেলা শেষে বিজয়ী ও বিজিত দলের কাছে ট্রফি তুলে দেন প্রধান অতিথি সাংসদ আবদুল হাই। বিশেষ অতিথি ছিলেন নবাগত পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান ও পৌরমেয়র সাইদুল করিম মিন্টু, ঝিনাইদহ সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার শাম্মী ইসলাম, জেলা ক্রীড়া অফিসার সুমন কুমার মিত্র, ডিএসএ’র সিনিয়র নির্বাহী সদস্য জয়নাল আবেদীনসহ আরো অনেকে।

    প্রতিযোগিতায় সর্বোচ্চ গোলদাতার সম্মান লাভ করেন ঝিনাইদহ পৌরসভার ১০ নম্বর জার্সিধারী খেলোয়াড় শাকিল। ফাইনালের ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন ঝিনাইদহ পৌরসভার ১ নম্বর জার্সি গোলকিপার সোহানুর।

    ঝিনাইদহ পৌরসভা: গোলকিপার- সোহানুর ১, জব্বার ২, মেহেদী হাসান ৩, রিয়াজ ৪ (অধিনায়ক), ইনজামামুর ৫ (মুন্না মিয়া ৬) (মেহেরাব ১৫), কাজিরুল ৮, সুুজন মিয়া ৯, শাকিল ১০, সাইফুল ১১, শান্ত বিশ্বাস ১২।

    শৈলকুপা উপজেলা: গোলকিপার- রাজু ১, তানভীর ২, মুস্তাফিজুর ৩, আবু তৈয়ব ৪, হৃদয় ৫, জিন্নাহ ৬, ওবাইদুর ৭, পারভেজ বিশ্বাস ৯, রেদওয়ান ১০, শাকিল ১৩ ও শুভ লস্কর ১২ (অধিনায়ক)।

    রেফারি: শাহ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ। সহকারী রেফারি: জামাল হোসেন ও শেখ মোহাম্মদ বেলাল হোসেন। ৪র্থ সহকারী রেফারি: শরিফুল ইসলাম।

    ঝিনাইদহ পৌরসভা অনূর্ধ্ব-১৭ ফুটবল একাদশ দল জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুবাদে খুলনা বিভাগীয় পর্যায়ে খেলার সুযোগ পেলো।

     

    বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে বিএলএসসি’র দু’জন ক্রীড়া ধারাভাষ্যকার…..

    ক্রীড়া ধারা বর্ণনায় ছিলেন সাবেক ক্রীড়াবিদ ও বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক ক্রীড়া ধারাভাষ্যকার জয়নাল আবেদীন এবং মাগুরা জেলা হতে আসা বাংলাদেশ লোকাল স্পোর্টস কমেন্টেটর্স এসোসিয়েশনের অন্যতম সদস্য তরুণ ক্রীড়া ধারাভাষ্যকার মিলন কুমার বিশ্বাস ও বাংলাদেশ লোকাল স্পোর্টস কমেন্টেটর্স এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা এলিস হক।

    ফাইনাল খেলার প্রাক্কালে ঝিনাইদহের অংকুর শিল্পীরা মাঠে চমৎকার ফরম্যাটে নৃত্য ও ডিসপ্লে পরিবেশন করেন।

     

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম/বিকে


অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

স্পোর্টস ফ্যাশন


প্রবাসী তারকা

জেলা ক্রীড়া সংস্থা

বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  


ক্রীড়া সাহিত্য

ব্যাডমিন্টন

আরচ্যারি

গল্‌ফ

ভারোত্তোলন

মহিলা ক্রীড়া সংস্থা