বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের নতুন চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন – BD Sports 24
  • বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের নতুন চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন

    October 12th, 2018

    ক্রীড়া প্রতিবেদক

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম

    ঢাকা, ১২ অক্টোবর: টাইব্রেকারে ০(৪)-০(৩) গোলে তাজিকিস্তানকে পরাজিত করে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের পঞ্চম আসরের শিরোপা জয় করে ফিলিস্তিন। এর ফলে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে প্রথমবারের মতো খেলতে এসেই শিরোপা জয়ের স্বাদ পেলো যুদ্ধবিধ্বস্ত ফিলিস্তিন। ফিলিস্তিনের গোলরক্ষক রামি হামাদা তাজিকিস্তানের চতুর্থ ও পঞ্চম শটটি রুখে দিয়ে দলকে শিরোপা জয়ের আনন্দে ভাসান।

    অপরদিকে ফাইনালে ভালো খেলেও চতুর্থ ও পঞ্চম পেনাল্টি শটে গোল না পাওয়ায় রানার্স আপেই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাজিকিস্তানকে।

    খেলাশেষে প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স্ দলকে পুরস্কার প্রদান করেন। প্রধানমন্ত্রী চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন এবং রানার্স আপ তাজিকিস্তানকে অভিনন্দন জানান। এছাড়া টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণকারী সব দলকেও অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী।

    চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন ট্রফির পাশাপাশি পেয়েছে ৫০ হাজার ডলার। রানার্স আপ তাজিকিস্তান ট্রফি ও ২৫ হাজার ডলার পুরস্কার লাভ করে। ফেয়ার প্লে ট্রফি পেয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশ।

    টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় হয়েছেন ফিলিস্তিন অধিনায়ক তাবরেজি দাভলাতমির। ম্যান অব দ্য ফাইনাল হন ফিলিস্তিনের গোলরক্ষক রামিক হামেদা। সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার পেয়েছেন তাজিকিস্তান স্ট্রাইকার তুরসুনভ কমরন। দুটি গোল করেন তিনি। পুরস্কার হিসেবে পেয়েছেন গোল্ডেন বুট। উদীয়মান সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার পেয়েছেন বাংলাদেশের বিপলু আহমেদ। টুর্নামেন্টে সেরা গোলরক্ষকের পুরস্কার পেয়েছেন তাজিকিস্তান গোলরক্ষক রিজুয়েভ রোস্তম। পুরস্কার হিসেবে পেয়েছে গোল্ডেন গ্লাবস।

    তাজিকিস্তান এবং ফিলিস্তিনের মধ্যকার বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবলের ফাইনাল ম্যাচের পুরো ৯০ মিনিট এবং অতিরিক্ত ৩০ মিনিট সর্বমোট ১২০ মিনিটে কোনো দল গোল করতে পারেনি। ফলে খেলা গড়িয়েছে টাইব্রেকারে।

    দ্বিতীয়ার্ধসহ অতিরিক্ত ৩০ মিনিট ১০ জনের দল নিয়েও সমান তালে লড়াই চালিয়ে গেছে তাজিকিস্তান। তাজিকিস্তানের খেলোয়াড়দের লড়াকু মনোভাবে দ্বিতীয়ার্ধে এক মুহূর্তের জন্যও মনে হয়নি যে, তাজিকিস্তান ১০ জনের দল। অবশ্য অতিরিক্ত ৩০ মিনিটে সময়ে তাজিকিস্তানকে রক্ষণাত্মক ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে দেখা যায়।

    বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবলের ফাইনালে শিরোপা জয়ের স্বপ্নে বিভোর দুই দল প্রথমার্ধে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ করে খেলে। দুই দলই বেশ ক’টি সহজ সুযোগ পেলেও তা কাজে লাগাতে না পারায় প্রথমার্ধ শেষ হয় ০-০ অমীমাংসিতভাবে।

    ৭ মিনিটে আক্রমণে যায় তাজিকিস্তান। এ সময় ডি বক্সের সামান্য বাইরে থেকে তাজিক স্ট্রাইকার এরগাশেভ জাহংগিরের নেয়া ডান পায়ের শট সাইড বারের পাশ দিয়ে বাইরে যায়।

    ১০ মিনিটে তাজিক অধিনায়ক ফাতখুল্লুর নেয়া গোলমুখে শট ফিলিস্তিন গোলরক্ষক রামি হামাদা ফিস্ট করে প্রতিহত করেন।

    ২৩ মিনিটে একটি জোরালো আক্রমণ থেকে গোল করতে ব্যর্থ হয় ফিলিস্তিন। এ সময় ফিলিস্তিন মিডফিল্ডার মোহাম্মদ রশিদ ডি বক্সের সামান্য ভেতর থেকে কিছুটা ডানে বল দেন ফরোয়ার্ড হেলাল মুসাকে। হেলাল মুসার নেয়া ডান পায়ের শট তাজিকিস্তান গোলরক্ষক রিজুয়েভ রোস্তম ডানদিকে ঝাঁপিয়ে কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন।

    ২৫ মিনিটে আবারও গোল করতে ব্যর্থ হয় ফিলিস্তিন। এ সময় ফিলিস্তিনের ফরোয়ার্ড হেলাল মুসা মাঝ মাঠ থেকে থ্রু পাসে বল দেন ফরোয়ার্ড খালেদ সালেমকে। খালেদ সালেম ক্ষিপ্রতার সাথে বল নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় তাজিক ফরোয়ার্ড তাকে বাধা দেয়ার চেষ্টা করেন। তার নেয়া বাম পায়ের শট সাইড বারে লেগে ফেরত আসলে নিশ্চিত গোল থেকে বঞ্চিত ফিলিস্তিন।

    ৩০ মিনিটে ডি বক্সের মাঝ বরাবর সামান্য বাইরে থেকে মিডফিল্ডার ইসলাম বর্তনের নেয়া শট তাজিক গোলরক্ষক রিজুয়েভ রোস্তম ফিস্ট করে কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন।

    ৩৩ মিনিটে তাজিক অধিনায়ক ফাতখুল্লু ফিলিস্তিন স্ট্রাইকার সামেত মারাবাকে ফাউল করলে দুই দলের খেলোয়াড়রা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় বেশ কয়েক মিনিট খেলা বন্ধ রাখতে হয় বাংলাদেশের রেফারি মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে। ৩৬ মিনিটে তাজিক অধিনায়ক ফাতখুল্লুকে রেফারি লাল কার্ড দেখিয়ে মাঠ থেকে বের করে দেন। ফলে ১০ জনের দলে পরিণত হয় তাজিকিস্তান।

    সংঘর্ষের সময় ফিলিস্তিনের ৩নং জার্সিধারী মোহাম্মেদ রশিদ তাজিক অধিনায়ককে ধাক্কা দেয়ায় রেফারি তাকে হলুদ কার্ড দেখিয়ে সতর্ক করে দেন।

    ৮ মিনিটে খেলা বন্ধ থাকার পর আবারও খেলা শুরু হয়।

    ৪৪ মিনিটে গোল প্রায় পেয়ে গিয়েছিলো তাজিকিস্তান। এ সময় ডি বক্সের সামান্য বাইরে থেকে তাজিক স্ট্রাইকার এরগাশেভ জাহংগির দুই/তিনজন ফিলিস্তিন রক্ষণভাগের খেলোয়াড়দের ফাঁক গলে গোলমুখে ডান পায়ের শট নেন। তার নেয়া শট ফিলিস্তিন রক্ষণভাগের এক খেলোয়াড়ের পায়ে লেগে গোলে ঢোকার মুহূর্তে ফিলিস্তিন গোলরক্ষক রামি হামাদা কিছুটা ডান দিকে সরে নিজের নিয়ন্ত্রণে বল নেন।

    দুই দলের খেলোয়াড়রা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে ৮ মিনিটে খেলা বন্ধ থাকলেও রেফারি অতিরিক্ত সময় দেন মাত্র ২ মিনিটে।

    ৪৫+২ মিনিটে তাজিক স্ট্রাইকার তুরসুনভ কমরন ডি বক্সের ভেতরে বল পেয়েও গোল করতে পারেননি। ফিলিস্তিনের এক ডিফেন্ডারের মাথার উপর দিয়ে না নেয়া শট বার পোস্টের অনেক উপর দিয়ে বাইরে গেলে গোলের দেখা পায়নি তাজিক। ফলে ফাইনাল ম্যাচের প্রথমার্ধ শেষ হয় ০-০ অমীমাংসিতভাবে।

    ৫৭ মিনিটে মিডফিল্ডার হেলাল মুসার কাছ থেকে বল পেয়ে আরেক মিডফিল্ডার আবদুল্রাহ জাহেরের নেয়া বাম পায়ের শট তাজিক গোলরক্ষক রিজুয়েভ রোস্তম কিছুটা লাফিয়ে কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন।

    ৫৮ মিনিটে পাল্টা আক্রমণে যায় ফিলিস্তিন। এ সময় ফিলিস্তিন সীমানায় তাদের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় ঠিকমত বল ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হলে ডি বক্সের সামান্য বাইরে বল পেয়ে যান তাজিক স্ট্রাইকার এরগাশেভ জাহংগির। তার নেয়া শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে গোলের দেখা পায়নি তাজিকিস্তান।

    ৬০ মিনিটে ডি বক্সের সামান্য বাইরে ফিলিস্তিন মিডফিল্ডার সামেহ মারাবা তাজিক স্ট্রাইকার কমরনকে ফাউল করলে রেফারি ফ্রি-কিকের বাঁশি বাজান। তাজিক ডিফেন্ডার আসরুরভের নেয়া ফ্রি-কিক গোল পোস্টের অনেক বাইরে দিয়ে যায়।

    ৭৪ মিনিটে বাম প্রান্ত থেকে তাজিক ডিফেন্ডার নাজারভের নেয়া শট সাইড নেটে লাগলে গোলের দেখা পায়নি তাজিকিস্তান।

    ৭৯ মিনিটে তাজিকিস্তান ফিলিস্তিনের জালে বল পাঠিয়েছিল। কিন্তু অফসাইডের কারণে গোলটি বাতিল করে দেন রেফারি মো: মিজানুর রহমান।

    ৮৯ মিনিটে ডানদিক দিয়ে আক্রমণে যায় ফিলিস্তিন। এ সময় বদলি খেলোয়াড় জোনাথনের কাছ থেকে বল পেয়ে আরেক বদলি খেলোয়াড় মাহমুদের নেয়া শট তাজিক ডিফেন্ডার কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন।

    ৯০+১ মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে তাজিকিস্তানের বদলি খেলোয়াড় আবদু গাফারভ গোলমুখে চমৎকার ক্রস করেন। কিন্তু তা থেকে আরেক তাজিক খেলোয়াড় বজোরভ পা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হলে নিশ্চিত গোল থেকে বঞ্চিত হয় তাজিকিস্তান। ফলে পুরো ৯০ মিনিটে খেলা শেষ হয় ০-০ অমীমাংসিতভাবে।

    ৯৬ মিনিটে আক্রমণে যায় ফিলিস্তিন। এ সময় ডি বক্সের সামান্য বাইরে থেকে মিডফিল্ডার পাবলো ব্রাভোর নেয়া ডান পায়ের শট সাইড নেটে লাগলে গোলের দেখা মিলেনি ফিলিস্তিনের।

    ১০০ মিনিটে ডি বক্সের ভেতর থেকে ফিলিস্তিন অধিনায়ক আলবাহদারির নেয়া ডান পায়ের শট দ্বিতীয় বারের বেশ বাইরে দিয়ে গেলে আবারও গোল বঞ্চিত হয় ফিলিস্তিন।

    ১০৫+১ মিনিটে ফিলিস্তিনের বদলি ফরোয়ার্ড উদে দাবাগের নেয়া বাম পায়ের শট তাজিক গোলরক্ষক রিজুয়েভ রোস্তম ফিস্ট করে কর্নারের বিনিময়ে নিজ দলকে রক্ষা করলে অতিরিক্ত সময়ের প্রথমার্ধও ০-০ অমীমাংসিত থাকে।

    ১১৪ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে থেকে ফিলিস্তিনের বদলি মিডফিল্ডার জোনাথনের নেয়া ডান পায়ের লক্ষ্য ক্রসবারের অনেক উপর দিয়ে বাইরে যায়।

    ১২০ মিনিটে ফিলিস্তিনের বদলি ফরোয়ার্ড উদে দাবাগের নেয়া হেড অল্পের জন্য ক্রস বারের ‍উপর দিয়ে বাইরে গেলে গোলের দেখা পায়নি ফিলিস্তিন। অতিরিক্ত ৩০ মিনিটেও কোনো গোল না হওয়ায় খেলা ০-০ অমীমাংসিত থাকে। ফলে খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে।

    টাইব্রেকারের টসে তাজিকিস্তান অধিনায়ক নাজারভ প্রথমে টাইব্রেকারের শুট আউট নেয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

    প্রথম শটটি নিতে আসেন তাজিক বদলি ডিফেন্ডার আবদুগাফারভ। তার নেয়া ডান পায়ের শট ফিলিস্তিন গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে জালে আশ্রয় নেয় (১-০)। ফিলিস্তিনের হয়ে প্রথম শটটি নেন বদলি খেলোয়াড় জোনাথন। জোনাথন গোল করে সমতা আনেন (১-১)। তাজিকিস্তানের হয়ে দ্বিতীয় শটটি নেন নাজারভ। নাজারভ গোল করলে ২-১এ এগিয়ে যায় তাজিকস্তান। ফিলিস্তিনের হয়ে দ্বিতীয় শটে মাহমুদ গোল করে সমতা আনেন (২-২)।

    তাজিকিস্তানের হয়ে তৃতীয় শটে গোল করেন আসরুরভ (৩-২)। ফিলিস্তিনের হতে তৃতীয় শটে গোল করেন মোসাব বাত্তাত (৩-৩)।

    চতুর্থ শটে তাজিকিস্তানের স্ট্রাইকার কমরনের নেয়া শট ফিলিস্তিন গোলরক্ষক রামি হামাদা ডান দিকে ঝাপিয়ে প্রতিহত করেন (৩-৩)। চতুর্থ শটে ফিলিস্তিনের অধিনায়ক আলবাহদারি গোল করলে ৪-৩এ এগিয়ে যায় ফিলিস্তিন।

    তাজিকিস্তানের হয়ে পঞ্চম শটটি নিতে আসেন তাজিক মিডফিল্ডার তাবরেজি ডাভলাটমির। কিন্তু তার নেয়া শট ফিলিস্তিন গোলরক্ষক রামি হামাদা অসামান্য দক্ষতায় বাম দিয়ে ঝাঁপিয়ে তা রুখে দিলে টাইব্রেকারে ০ (৪)–০(৩) গোলে তাজিকিস্তানকে পরাজিত করে শিরোপা জয় করে ফিলিস্তিন।

     

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম/এমএকে


অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

স্পোর্টস ফ্যাশন


প্রবাসী তারকা

জেলা ক্রীড়া সংস্থা

বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  


ক্রীড়া সাহিত্য

ব্যাডমিন্টন

আরচ্যারি

গল্‌ফ

ভারোত্তোলন

মহিলা ক্রীড়া সংস্থা