৯ বছর পর সাফের শিরোপা জিতলো মালদ্বীপ – BD Sports 24
  • ৯ বছর পর সাফের শিরোপা জিতলো মালদ্বীপ

    September 15th, 2018

    ক্রীড়া প্রতিবেদক

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম

    ঢাকা, ১৫ সেপ্টেম্বর: সাফ সুজুকি কাপের ফাইনালে ৭ বারের চ্যাম্পিয়ন ভারতকে ২-১ গোলে পরাজিত করে দ্বিতীয়বারের মতো সাফ ফুটবলের শিরোপা নিজেদের করে নিয়েছে মালদ্বীপ।

    উল্লেখ্য, গ্রুপ পর্বের দুই ম্যাচে দুই গোল হজম করলেও কোনো গোল করতে পারেনি মালদ্বীপ। কোনো গোল না করেই সেমিফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে মালদ্বীপ।

    এরপর সেমিফাইনালে ৩-০ গোলে নেপালকে এবং ফাইনালে ২-১ গোলে ভারতকে পরাজিত করে গ্রুপ পর্বে কোনো গোল করতে না পারা মালদ্বীপ শিরোপা জয় করে।

    ২০০৯ সালে শেষবার সাফের ফাইনালে খেলেছিল মালদ্বীপ। ওই আসরে ভারতের কাছে টাইব্রেকারে ৩-১ গোলে হেরে রানার্স আপেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছিল তাদের।

    ৯ বছর পর আবারও সাফের ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে মালদ্বীপ। এবার ফাইনালে ভারতকে ২-১ গোলে হারিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো সাফের শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করলো মালদ্বীপ। সেই সাথে গ্রুপ পর্বে ভারতের কাছে ২-০ হারের প্রতিশোধও নিয়ে নিলো পিটার সেগার্টের শিষ্যরা।

    সাফে এ নিয়ে চারবার ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করা মালদ্বীপ দুইবারই শিরোপা ঘরে তোলে। চারবারের ফাইনালেই মালদ্বীপের প্রতিপক্ষ ছিল ভারত। ১৯৯৭ সালে প্রথমবারের মতো সাফের ফাইনালে ওঠে মালদ্বীপ। সেবার ভারতের কাছে ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়ে রানার্স আপ হয়।

    ২০০৮ সালে ফাইনালের ভারতকে ১-০ গোলে হারিয়ে প্রথমবারের মতো শিরোপা জিতে মালদ্বীপ। ২০০৯ সালের ফাইনালে টাইব্রেকারে ভারতের কাছে ৩-১ গোলে হেরে যায় তারা। ২০১৮ সালের ফাইনালে আবারও ভারতকে ২-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা জেতে মালদ্বীপ।

    ফাইনালে শক্তিশালী ভারতের বিপক্ষে প্রথমার্ধে ১-০ গোলে এগিয়ে রয়েছে মালদ্বীপ। ১৮ মিনিটে মালদ্বীপের ফরোয়ার্ড ইব্রাহিম হোসাইন গোলটি করেন।

    ভারত ও মালদ্বীপের মধ্যকার সাফ সুজুকি কাপের ফাইনালে প্রথমার্ধের ১৭ মিনিট উল্লেখযোগ্য কোনো আক্রমণ করতে দেখা যায়নি দুই দলকে। তবে ১৮ মিনিটে প্রথমবার ভারতীয় শিবিরে হানা দিয়েই সফল হয় মালদ্বীপ।

    এ সময় ডান প্রান্ত দিয়ে আক্রমণ যায় তারা। হাসান নাইজের থ্রু পাস থেকে ইব্রাহিম হোসাইন চলন্ত বলে ডান পায়ের শটে ভারতীয় গোলরক্ষক বিশাল কাইথের মাথার উপর দিয়ে ভারতের জালে বল পাঠান (১-০)।

    ৩১ মিনিটে নিশ্চিত গোল থেকে বঞ্চিত হয়। এ সময় ডান প্রান্ত থেকে সারথাক গোলির নেয়া লম্বা থ্রু’র বল ভুটানের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় ঠিকমতো ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হলে ডি বক্সের ভেতরে বল পেয়ে যান ভারতের স্ট্রাইকার মানবীর সিং। কিন্তু মানবীর সিং-এর নেয়া ডান পায়ের শট অল্পের জন্য সাইড বার ঘেঁষে বাইরে গেল গোল পরিশোধ করা হয়নি ভারতের।

    ৪২ মিনিটে আবারও এগিয়ে যেতে পারতো মালদ্বীপ। এবার বাম প্রান্তে ডিবক্সের সামান্য বাইরে ফ্রি-কিক পায় মালদ্বীপ। মালদ্বীপের ফরোয়ার্ড ফাসির আলীর নেয়া ডান পায়ের ফ্রি-কিক ক্রসবারের সামান্য উপর দিয়ে বাইরে যায়।

    ১৮ মিনিটে ইব্রাহিম হোসাইনের দেয়া গোলে প্রথমার্ধে ১-০তে এগিয়ে থাকে মালদ্বীপ।

    দ্বিতীয়ার্ধে আবারও গোল করে এগিয়ে যায় মালদ্বীপ। সেটি ৬৫ মিনিটে। এ সময় মাঝ মাঠ থেকে মালদ্বীপের স্ট্রাইকার মোহাম্মদ হামজার থ্রু পাস থেকে ডি বক্সের সামান্য বাইরে বল পেয়ে যান আরেক ফরোয়ার্ড ফাসির আলী। বল ধরে ক্ষিপ্রতার সাথে ডি বক্সে ঢুকে পড়েন ফাসির আলী। এ সময় আগুয়ান গোলরক্ষক বিশাল কাইথের ডান পাশ দিয়ে ঠাণ্ডা মাথায় বাম পায়ে বল জালে ঠেলে দেন ফাসির আলী (২-০)।

    ৮৭ মিনিটে ভারতের একটি গোলের প্রচেষ্টা নস্যাৎ করে দেন মালদ্বীপের চৌকষ গোলরক্ষক মোহাম্মদ ফয়সাল। এ সময় বাম প্রান্ত থেকে ভারতের মিডফিল্ডার আশিক কুরুনিয়ানের নেয়া বাম পায়ের শট মালদ্বীপ গোলরক্ষক অসামান্য দক্ষতায় নিজের নিয়ন্ত্রণে নিলে গোলের দেখা পায়নি ভারত।

    ৯০+২ মিনিটে বদলি মিডফিল্ডার সুমিত পাসির গোলে একটি গোল পরিশোধ করে ভারত। এ সময় নিখিল চন্দ্র শেখরের ক্রস থেকে ডান পায়ের শটে মালদ্বীপের গোলরক্ষক মোহাম্মদ ফয়সালকে পরাস্ত করেন সুমিন পাসি (১-২)।

    ৯০+৪ মিনিটে গোলের একটি সহজ সুযোগ নষ্ট করেন মালদ্বীপের ফাসির আলী। এ সময় ভারতের গোলরক্ষক বিশাল কাইথকে একা পেয়েও গোলে শট নিতে ব্যর্থ হন তিনি।

    এরপরই রেফারি খেলার শেষ বাঁশি বাজালে শক্তিশালী ভারতকে ২-১ গোলে হারিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন হয় মালদ্বীপ। সেইসাথে উল্লাসে ফেটে পড়ে মালদ্বীপের খেলোয়াড়-কোচ-কর্মকর্তরা।

    খেলাশেষে প্রধান অতিথি বাফুফে সভাপতি কাজী মো: সালাউদ্দিন চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স আপ দলের হাতে ট্রফি তুলে দেন। চ্যাম্পিয়ন মালদ্বীপ ট্রফির পাশাপাশি ৫০ হাজার ডলার এবং রানার্স আপ ভারত ট্রফি ও ২৫ হাজার ডলার পুরস্কার লাভ করে।

    ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছেন মালদ্বীপের ১৭নং জার্সিধারী ইব্রাহিম মোহাম্মদ হোসেন। ফাইনাল ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে খেলার ৬৫ মিনিটে অসাধারণ গোল করে মালদ্বীপের জয়ে বিশেষ ভূমিকা রাখেন তিনি। তার এই দেখার মতো গোলই তাকে ফাইনালের সেরা খেলোয়াড়ের ‍পুরস্কার এনে দেয়।

    টুর্নামেন্টে ফেয়ার প্লে ট্রফি লাভ করে ভুটান।

     

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম/এমএকে


অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

স্পোর্টস ফ্যাশন


প্রবাসী তারকা

    No posts here...

জেলা ক্রীড়া সংস্থা

বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  


ক্রীড়া সাহিত্য

ব্যাডমিন্টন

আরচ্যারি

গল্‌ফ

ভারোত্তোলন

মহিলা ক্রীড়া সংস্থা

    No posts here...