লঙ্কানদের হারিয়ে শীর্ষে অস্ট্রেলিয়া – BD Sports 24
  • লঙ্কানদের হারিয়ে শীর্ষে অস্ট্রেলিয়া

    June 16th, 2019

    ক্রীড়া ডেস্ক

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম

    ওভাল, ১৫ জুন: শ্রীলংকাকে হারিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে ওঠে এসেছে চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। শনিবার আইসিসি বিশ্বকাপে নিজেদের পঞ্চম ম্যাচে লংকানদের ৮৭ রানের বড় ব্যবধানে হারায় অস্ট্রেলিয়া। চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার এটা চতুর্থ জয়।

    পাঁচ ম্যাচ খেলা অস্ট্রেলিয়া মাত্র একটি ম্যাচে হেরেছে। এর ফলে সর্বোচ্চ ৮ পয়েন্ট নিয়ে নিউজিল্যান্ডকে পেছনে ফেলে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে এখন অস্ট্রেলিয়া। ৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে নিউজিল্যান্ড। আর এই ম্যাচে হেরে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে উঠার স্বপ্ন প্রায় শেষ হয়ে গেল লংকানদের। কারণ দলটির সংগ্রহ ৫ ম্যাচে মাত্র ৪ পয়েন্ট।

    ওভালে টস জিতে আগে ব্যাট করে ফিঞ্চের সেঞ্চুরিতে ৭ উইকেটে ৩৩৪ রানের বিশাল স্কোর গড়েই জয়ের পথে এগিয়ে যায় দলটি। জয়ের জন্য ৩৩৫ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো করলেও অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের বোলিং আক্রমণে শেষ পর্যন্ত দাঁড়াতেই পারেনি লংকানরা। মিচেল স্টার্ক আর রিচার্ডসনের বোলিংয়ে মাত্র ২৪৭ রানে অলআউট হয় শ্রীলংকা। ফলে ৮৭ রানে জয় পায় অস্ট্রেলিয়া। স্টার্ক ৪টি, রিচার্ডসন ৩টি ও প্যাট কামিন্স ২ উইকেট শিকার করেন। ম্যাচসেরা হন টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় সেঞ্চুরি করা অসি অধিনায়ক ফিঞ্চ।

    জয়ের জন্য শ্রীলংকার সামনে ৩৩৫ রানের টার্গেটটা কঠিনই ছিল। তবে ৩৩৫ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা অসাধারণ করে দলটি। উদ্বোধনী জুটিতে কুশল পেরেরা ও দিমুথ করুনারত্নে মিলে ঝড়ো ব্যাটিং করে দলকে এগিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এতে সফলও হয় এই জুটি। কারণ ওপেনিং জুটি ভাঙ্গার আগেই শ্রীলংকা পৌঁছে যায় ১১৫ রানে। তবে পেরেরার বিদায়ে ভাঙ্গে এই জুটি। মিচেল স্টার্ক এর বলে বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়ার আগে ৩৬ বলে ৫২ রান করেন পেরেরা। তার ৫২ রানের ইনিংসে ছিল ৫টি চার আর একটি ছক্কার মার।

    পেরেরা ফিফটি করে আউট হলেও সেঞ্চুরির দ্বারপ্রান্তে ছিলেন অপর ওপেনার দিমুথ করুনারত্নে। কিন্তু ৯৭ রানে গিয়ে আউট হন এই অধিনায়ক। মাত্র তিন রানের জন্য সেঞ্চুরি করতে পারেননি তিনি। রিচার্ডসনের বলে ম্যাক্সওয়েলকে ক্যাচ দিয়ে আউট হওয়ার আগে ১০৮ বলে ৯ বাউন্ডারিতে তিনি করেন ৯৭ রান। দলীয় ১৫৩ রানের মধ্যে দুই ওপেনারের বিদায়ে রানের গতি কিছুটা কমতে থাকে লংকানদের। ব্যাট করতে নেমে দলের হয়ে ভালো করতে পারেননি থিরিমান্নে। মাত্র ১৬ রান করে আউট হলে ১৮৬ রানে প্রথম তিন উইকেট হারায় লংকারা। তবে কুশল মেন্ডিস আর অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস মিলে দলকে ২০০ রানের ঘরে নিয়ে যায়।

    দলীয় ২০৫ রানে ম্যাথুস আর দলীয় ২০৯ রানে মিলিন্দা সিরিবর্ধনের দ্রুত বিদায়ে বেশ চাপে পড়ে লংকানরাা। ম্যাথুস ৯ রান করলেও সিরিবর্ধনে করেন মাত্র ৩ রান। ব্যাট করতে নেমে থিসারা পেরেরা রানের খাতা খোলার আগে বিদায় নিলে ২১৭ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে শ্রীলংকা। ম্যাথুসকে কামিন্স ফেরানের পর সিরিবর্ধনে আর পেরেরাকে ফিরান মিচেল স্টার্ক। দলীয় ২২২ রানে মেন্ডিসকে আউট করে স্টার্ক শ্রীলংকার জয়ের স্বপ্ন একেবারে ভেংগে দেন। আউট হওয়ার আগে ৩৭ বলে দুই ছক্কায় ৩০ রান করেন মেন্ডিস। শেষ পর্যন্ত শ্রীলংকার স্কোর থেমে যায় ৪৫.৫ ওভারে ২৪৭ রানে। দলটি খেলতে পারেনি পুরো ৫০ ওভার।

    এর আগে অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চের সেঞ্চুরিতে শ্রীলংকাকে জয়ের জন্য ৩৩৫ রানের বিশাল টার্গেট দিয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। লন্ডনে টুর্নামেন্টের বিশতম ও আজ দিনের প্রথম ম্যাচে টস হেওে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে বিশাল ৩৩৪ রান করে চ্যাম্পিয়নরা। ফিঞ্চের সেঞ্চুরির পাশাপাশি স্টিভেন স্মিথের ৭৩ রান আর ম্যাক্সওয়েলের অপরাজিত ৪৬ রানের উপর ভর করে ৩৩৪ রানের বিশাল স্কোর গড়ে দলটি। দুই ওপেনার ফিঞ্চ ও ডেভিড ওয়ার্নার দলকে পৌঁছে দেয় ৮০ রানে। ডেভিড ওয়ার্নারের বিদায়ে ভাংগে এই জুটি। ধনঞ্জয়া ডি সিলভার বলে সরাসরি বোল্ড আউট হওয়ার আগে ৪৮ চলে ২৬ রান করেন গত ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান ওয়ার্নার। ডেভিড ওয়ার্নারকে হারানোর ধাক্কা সামলে নিতে অ্যারন ফিঞ্চ নতুন জুটি করেন ওসমান খাজাকে নিয়ে। কিন্তু ব্যাট করতে নেমে নিজেকে প্রমাণ করতে পারেননি খাজা। দলকে ১০০ রানে পৌছে ব্যক্তিগত মাত্র ১০ রান করে ডি সিলভার দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন খাজা। খাজার বিদায়ে ফিঞ্চ নতুন জুটি করেন স্টিভেন স্মিথকে নিয়ে। এই দু’জনের ব্যাটে ভর করেই বড় স্কোরের সুযোগ পায় অস্ট্রেলিয়া। তৃতীয় উইকেট জুটিতে স্টিভেন স্মিথের সঙ্গে ১৭৩ রানের পার্টনারশিপ গড়েন ফিঞ্চ। এই জুটি ভাংগার আগেই ২৭৩ রানে পৌঁছে যায় অস্ট্রেলিয়া। দলীয় ১৭৩ রানে ফিঞ্চের বিদায়ে ভাংগে এই সফল জুটি। আউট হওয়ার আগে দলের পক্ষে সেঞ্চুরিসহ ১৫৩ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন ফিঞ্চ।

    সেঞ্চুরির পাশাপাশি চলমান বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রানের মালিকও এখন এই অধিনায়ক। ইসুরু উদানার বলে আউট হওয়ার আগে ৯৭ বলে সেঞ্চুরি করা ফিঞ্চ ১৩২ বলে ১৫টি চার ও ৫টি ছক্কায় ১৫৩ করেন তিনি। এটি তার ক্যারিয়ার সেরা রানও। দলীয় ২৭৪ রানে আউট হন স্মিথ। লাসিথ মালিঙ্গার বলে বোল্ড হওয়ার আগে স্মিথ ৫৯ বলে ৭টি চার ও একটি ছক্কায় ৭৩ রান করেন। ব্যাট করতে নেমে ভালো করতে পারেননি শন মার্শ, অ্যালেক্স ক্যারি আর প্যাট কামিন্স। শন মার্শকে মাত্র তিন রানে ফিরিয়ে নিজের দ্বিতীয় উইকেট তুলে নেন উদানা। ব্যাট করতে নেমে অ্যালেক্স ক্যারি ৪ রান করলেও রানের খাতা খোলার আগেই রান আউট হন প্যাট কামিন্স।

    শ্রীলংকার বোলারদের মধ্যে ডি সিলভা ও উদানা দুটি করে উইকেট নেন। মালিঙ্গা নেন একটি উইকেট। বাসস

     

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম/বিকে


অতিথি কলাম

    No posts here...

সাক্ষাৎকার

স্পোর্টস ফ্যাশন


প্রবাসী তারকা

    No posts here...

জেলা ক্রীড়া সংস্থা

বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  


ক্রীড়া সাহিত্য

ব্যাডমিন্টন

আরচ্যারি

গল্‌ফ

ভারোত্তোলন

মহিলা ক্রীড়া সংস্থা