সবুজের গোলে ফাইনালে বসুন্ধরা কিংস – BD Sports 24
  • সবুজের গোলে ফাইনালে বসুন্ধরা কিংস

    November 20th, 2018

    ক্রীড়া প্রতিবেদক

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম

    ঢাকা, ২০ নভেম্বর:  নবাগত বসুন্ধরা কিংস এবং শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্রের মধ্যকার ফেডারেশন কাপের প্রথমার্ধ শেষ হয় ০-০ অমীমাংসিতভাবে। দ্বিতীয়ার্ধেও কোনো গোল নেই। সঙ্গত কারণেই খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। অতিরিক্ত সময়েও গোলের দেখা পাচ্ছিলো না কোনো দলই। অবশেষে কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা মেলে খেলার ১১৮তম মিনিটে। গোলদাতা নবাগত বসুন্ধরা কিংস-এর বদলি ফরোয়ার্ড তৌহিদুল আলম সবুজ। তার গোলেই দ্বিতীয় সেমিফাইনালে শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্রকে ১-০ গোলে পরাজিত করে মৌসুমের প্রথম আসর ফেডারেশন কাপ ফুটবলের ফাইনালে জায়গা করে নেয় প্রিমিয়ার লিগের নবাগত দল বসুন্ধরা কিংস।

    খেলার বেশিরভাগ সময় প্রাধান্য বিস্তার করে খেলে নবাগত বসুন্ধরা কিংস। কিন্তু ফরোয়ার্ডদের ব্যর্থতায় গোলের দেখা পায়নি তারা। অপরদিকে শেখ রাসেল কয়েকবার বসুন্ধরা কিংস সীমানায় হানা দিলেও তা থেকে কাঙ্ক্ষিত গোল আদায় করতে পারেনি তারা।

    ৬ মিনিটে ডি বক্সের সামান্য বাইরে থেকে শেখ রাসেলের উজবেক ফরোয়ার্ড আজিজভ আলিসেরের নেয়া ডান পায়ের শট সরাসরি বসুন্ধরা কিংস গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকোর হাতে আশ্রয় নিলে গোল পায়নি শেখ রাসেল।

    ৮ মিনিটে ফাঁকা পোস্টে বল পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ হন বসুন্ধরা কিংস-এর ফরোয়ার্ড মাহবুবুর রহমান সুফিল। ছোট ডির ভেতর থেকে মাহবুবুর রহমান সুফিলের নেয়া শট শেখ রাসেল গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা রুখে দেন। ফিরতি বলে মাসুক মিয়া জনির নেয়া শট শেখ রাসেলের নাইজেরিয়ান ডিফেন্ডার আলিসনের গায়ে লেগে ফেরত আসলে নিশ্চিত গোল থেকে বঞ্চিত হয় বসুন্ধরা কিংস।

    ২৩ মিনিটে আবারও সুযোগ হাতছাড়া করে বসুন্ধরা কিংস। এবার বাম প্রান্তে ডি বক্সের ভেতর থেকে মিডফিল্ডার মো: ইব্রাহিমের নেয়া শট শেখ রাসেল গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম ফিস্ট করে প্রতিহত করলে গোলের দেখা পায়নি বসুন্ধরা কিংস।

    ৩৪ মিনিটে আহত হয়ে মাঠ ছাড়েন বসুন্ধরা কিংস ডিফেন্ডার ফয়সাল। তার পরিবর্তে মাঠে নামেন ৯নং জার্সিধারী মো: মতিন মিয়া।

    ৪৫+২ মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে শেখ রাসেলের বিশ্বনাথ ঘোষের নেয়া লম্বা থ্রো থেকে ফরোয়ার্ড বিপলু আহমেদের নেয়া হেড বসুন্ধরা কিংস গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো নিজের নিয়ন্ত্রণে নিলে গোলের দেখা পায়নি শেখ রাসেল। সেইসাথে প্রথমার্ধ শেষ হয় ০-০ অমীমাংসিতভাবে।

    ৫৪ মিনিটে ডি বক্সের কাছে ফ্রি কিক পায় শেখ রাসেল। তবে রাফায়েলের শট জাল খুঁজে পায়নি। পরের মিনিটেই আবারো সুযোগ পান রাফায়েল। তবে বক্সের বাইরে থেকে তার নেয়া দুর্বল শট সহজেই নিজের নিয়ন্ত্রণে নেন গোলরক্ষক জিকো। ৫৮ মিনিটে কলিনড্রেসের ডান পায়ের জোরালো শট রুখে দেন রাসেল গোলরক্ষক রানা।

    ৬১ মিনিটে বাম প্রান্ত থেকে ইব্রাহিমের ক্রস ক্লিয়ার করেন রাসেল ডিফেন্ডাররা। ৮০ মিনিটে কিছুটা উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে ম্যাচে। বসুন্ধরার জর্জ গোটর বল নিয়ে রাসেলের বক্সে ঢুকে পড়লে বল নিয়ন্ত্রনে নেন রানা। গোটর ভারসাম্য হারিয়ে রানার উপর পড়ে গেলে তার সঙ্গে বাক-বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন শেখ রাসেলের ফুটবলাররা।

    ৮৪ মিনিটে গোটরের ডান পায়ের কোনাকোনি শট বারে লেগে ফেরত আসে লাফিয়ে বল ছুঁয়ে দিয়ে গতিপথ বদলে দেন রানা। ফলে আবারো গোল বঞ্চিত হয় বসুন্ধরা। নির্ধারিত ৯০ মিনিটে কোনো দলই গোল করতে পারেনি। ফলে ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।

    অবশেষে কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা মেলে ১১৮ মিনিটে। বদলি ফরোয়ার্ড তৌহিদুল আলম সবুজের গোলে ম্যাচে লিড নেয় বসুন্ধরা। প্রায় ৩০ গজ দূর থেকে কলিনড্রেসের জোরালো গড়ানো শট ঠিক মতো ধরতে পারেননি শেখ রাসেল গোলরক্ষক। কাছে থাকা সুযোগ সন্ধানী তৌহিদুল আলম সবুজ শেখ রাসেলের জালে বল পাঠাতে ভুল করেননি। সেইসাথে ১-০ গোলের জয়ে ফাইনালে পৌঁছে নবাগত বসুন্ধরা কিংস।

    অপরদিকে দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনালে খেলার স্বপ্ন ভেঙে যায়। ২০১২ সালে শেষবার ফাইনাল খেলেছিল শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্র। ওই আসরের শিরোপা জয় করেছিল শেখ রাসেল।

    আগামী ২৩ নভেম্বর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ফাইনালে মুখোমুখি হবে ঢাকা আবাহনী ও বসুন্ধরা কিংস।

     

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম/এমএকে


অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

স্পোর্টস ফ্যাশন


প্রবাসী তারকা

জেলা ক্রীড়া সংস্থা

বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  


ক্রীড়া সাহিত্য

ব্যাডমিন্টন

আরচ্যারি

গল্‌ফ

ভারোত্তোলন

মহিলা ক্রীড়া সংস্থা