হেভিওয়েট কোচের সন্ধানে বিসিবি – BD Sports 24
  • হেভিওয়েট কোচের সন্ধানে বিসিবি

    March 25th, 2018

    মোয়াজ্জেম হোসেন রাসেল

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম

    ঢাকা, ২৫ মার্চ: জাতীয় দলের প্রধান কোচ নিয়ে হঠাৎই বেশ বড় রকমের ঝামেলায় পড়ে গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। কোনোভাবেই মাশরাফি, সাকিব, মুশফিক, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদদের জন্য একজন হেভিওয়েট কোচ খুঁজে পাচ্ছে না বিসিবি। দুই বছরের বেশি সময় দায়িত্ব পালন করা চন্ডিকা হাথুরুসিংহে চলে যাওয়ার পর দীর্ঘদিন হেড কোচ শূন্য অবস্থায় রয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় দল। কোচ নিয়ে একচু ধীরে এগুতে চেয়েছিল বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। কিন্তু জাতীয় দলের পারফরম্যান্স তাকে বড়বেশি ভাবনায় ফেলে দিয়েছে। সে কারণে শুরুতে কিছুটা ধীরলয়ে এগুলেও হঠাৎই মনে হয়েছিল দ্রুতই কোচ সমস্যার সমাধান হতে যাচ্ছে। এরপর বেশ কয়েকজন হেভিওয়েট কোচের নাম শোনা গেলেও তা এখনো বাস্তবে রূপ লাভ করেনি।

    সর্বশেষ ইংল্যান্ড জাতীয় দলের সহকারী কোচ পল ফারব্রেসকে প্রধান কোচ হিসেবে পছন্দও করে বিসিবি। অনেকটা গোপনে আলোচনাও শেষ করেছিল দুই পক্ষ। কিন্তু চুক্তি সই করার আগেই কাজ না করার জন্য বেঁকে বসেন তিনি। যদিও বিসিবি ও ইংলিশ এ সহকারী কোচ কেউই আনুষ্ঠানিকভাবে এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। কিন্তু ক্রিকেট বিষয়ক ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইনফো জানিয়ে দেয়, পারিবারিক কারণে এ কাজের প্রস্তাবে রাজি হতে পারেননি ফারব্রেস। এর আগে নিদাহাস ট্রফি চলাকালীন শ্রীলংকার কলম্বোয় বিসিবি সভাপতি জানিয়েছিলেন, আগামী এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে হেড কোচ নিয়োগের বিষয়টি চূড়ান্ত হবে। এখন পল ফারব্রেসের বেকে বসাতে আবারো যেমন বিপাকে পড়েছে বিসিবি ঠিক তেমনি কোচ নিয়োগের বিষয়টিও ঝুলে গেছে।

    হাথুরুসিংহের শূন্যস্থান পূরণ করতে একজন হেভিওয়েট কোচের যে বিকল্প নেই সেটি বুঝতে বাকি নেই বিসিবির। সে কারণেই সিনিয়র একজন অভিজ্ঞ কোচই নিয়োগ দিতে চায় বিসিবি। আলোচনা করে দুই পক্ষ সবকিছু ঠিকঠাক করে চুক্তিপত্র পাঠিয়ে দিয়েছিল বিসিবি। তাতে সই করার ঠিক আগ মুহূর্তে বাধে ঝামেলা। ৫০ বছর বয়সি কেন্টের এই কোচ ৪০টি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ খেলেছেন। সবচেয়ে বড় কথা তিনি ইংলিশদের সহকারী কোচ। উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান ফারব্রেস বেশ কয়েকবার ভারপ্রাপ্ত কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০০৯ সালে শ্রীলংকা দলের সহকারী কোচ থাকাকালীন লাহোরে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছিলেন। লংকান দলে কাজ করার কারণেই তাকে নিয়োগ দিতে চেয়েছিল বিসিবি। হাথুরুসিংহে চলে যাওয়ার পর ফিল সিমন্স ও রিচার্ড পাইবাসকে ডেকে এনে সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু দুজনের কাউকেই কিছু না বলায় নতুন চাকুরিতে এরই মধ্যে যোগদানও করেছেন তারা। বর্তমান ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-২০ ক্রিকেটের কারণে ভালমানের কোচ পাওয়া কঠিন হয়ে যাচ্ছে। এই যেমন রংপুর রাইডার্সের কোচ হয়ে দলকে চ্যাম্পিয়ন করান অস্ট্রেলিয়ান টম মুডি। তাকে জাতীয় দলের জন্য অফার করা হলে তিনি রাজি হননি।

    পাশাপাশি উচ্চ পারিশ্রমিকের বিষয়টিও তো রয়েছেই। বছরে ৪০ দিন কাজ করার প্রস্তাবে প্রতিদিন ৫ হাজার ডলার চেয়েছিলেন অসি গ্রেট শেন ওয়ার্ন! আইপিএল, বিপিএল, বিগব্যাশ, সিপিএল দিয়ে সারা বছরের অর্থ একমাসেই কামিয়ে ফেলেন কোচরা। সে কারণে জাতীয় দলের জন্য দীর্ঘমেয়াদে কাজ করতে চান না। ২০১৫ সালে হাথুরুসিংহে যোগ দেওয়ার আগেও এমন পরিস্থিতিতে পড়েছিল বাংলাদেশ। সে সময় এই লংকানের পাশাপাশি এন্ডি ফ্লাওয়ার, মাইকেল বেভান, টম মুডি, ওয়াসিম আকরাম, শেন ওয়ার্নের নাম শোনা গিয়েছিল। সে সময় হাথুরুকে পেয়ে স্বস্তি ফিরে এসেছিল। এবার কে বাংলাদেশকে স্বস্তি দেবে, সেটাই এখন দেখার বিষয়।

     

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম/বিকে


অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

স্পোর্টস ফ্যাশন


প্রবাসী তারকা

    No posts here...

জেলা ক্রীড়া সংস্থা

বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  


ক্রীড়া সাহিত্য

ব্যাডমিন্টন

আরচ্যারি

গল্‌ফ

ভারোত্তোলন

মহিলা ক্রীড়া সংস্থা

    No posts here...