৪-০ ব্যবধানে অ্যাশেজ সিরিজ জিতলো অস্ট্রেলিয়া – BD Sports 24
  • ৪-০ ব্যবধানে অ্যাশেজ সিরিজ জিতলো অস্ট্রেলিয়া

    January 8th, 2018

    ক্রীড়া ডেস্ক

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম

    সিডনি, ০৮ জানুয়ারি: অ্যাশেজ সিরিজের পঞ্চম ও শেষ টেস্টে সফরকারী ইংল্যান্ডকে দ্বিতীয় ইনিংসে ১৮০ রানে ধসিয়ে দিয়ে ইনিংস ও ১২৩ রানে সিডনি টেস্ট জিতে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ফলে পাঁচ ম্যাচের ঐতিহ্যবাহী অ্যাশেজ সিরিজ ঘরের মাটিতে ৪-০ ব্যবধানে জিতলো স্বাগতিকরা।

    ৩০৩ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করা ইংল্যান্ড ৪ উইকেটে ৯৩ রান করে চতুর্থ দিনের খেলা শেষ করেছিল। চতুর্থ দিন শেষেই জয়ের সুবাস পাচ্ছিল অস্ট্রেলিয়া। পঞ্চম দিনে মধ্যাহ্ন বিরতির পরপরই ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় ইনিংস ১৮০ রানে গুটিয়ে যায়। অস্ট্রেলিয়ান প্রথম ইনিংসে ৬৪৯ রানের বিশাল রানের জবাবে ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় ইনিংস ১৮০ রানেই গুটিয়ে যায়। যদিও অধিনায়ক জো রুটের ওপরই শেষ ভরসা ছিল ইংলিশদের। আগেরদিন ৪২ রানে অপরাজিত থাকা রুট অসুস্থতার কারণে ৫৮ রানের বেশি করতে পারেননি। পানি স্বল্পতার কারণে হাসপাতালে পর্যন্ত রুটকে যেতে হয়েছে।

    দারুণ একটি সিরিজে সফলভাবে দলকে নেতৃত্ব দেয়া অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ বলেছেন, ‘গত দুই মাস আমাদের দারুণ কেটেছে। এই দুই মাসে আমরা যেভাবে ক্রিকেট খেলেছি তা এককথায় অসাধারণ। মোট কথা আমরা শীর্ষে থাকতে চেয়েছি। সঠিক সময়ে সঠিকভাবে পারফর্ম করে ও গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে তাদেরকে খেলায় ফিরতে না দিয়েই আমরা একের পর এক জয় ছিনিয়ে নিয়েছি।’

    সিডনিতে আক্রমণাত্মক অস্ট্রেলিয়াকে বল হাতে সাফল্য এনে দিয়েছেন পেসার প্যাট কামিন্স। ম্যাচ সেরা এই বোলারের ৩৯ রানে চার উইকেট প্রাপ্তিই অস্ট্রেলিয়ান সিডনিতে বড় জয়ের পথ দেখিয়েছে। ২৩ উইকেট নিয়ে সিরিজের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারিও এই অসি পেসার।

    ৮৮.১ ওভারে ইংল্যান্ডের ইনিংস ৯ উইকেটে ১৮০ রানে থেমে গেলে অস্ট্রেলিয়া ইনিংস ও ১২৩ রানের জয় ছিনিয়ে নেয়। এর মাধ্যমেই ব্রিসবেন, এডিলেড ও পার্থের পরে পঞ্চম টেস্টেও অস্ট্রেলিয়ার জয় নিশ্চিত হয়। মেলবোর্নে চতুর্থ টেস্টটি ড্র হয়েছিল।

    আগের রাতে পেটের সমস্যায় ভোগা রুট মধ্যাহ্ন বিরতির পরে আর ব্যাট হাতে নামতে পারেননি। প্রচণ্ড গরমে রুট অসুস্থ হয়ে পড়েন বলে সহ-অধিনায়ক জিমি এন্ডারসনে জানিয়েছেন। এন্ডারসন বলেন, প্রতিটি ম্যাচেই সে আমাদের দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় ছিল। তার কারণেই একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত আমরা ম্যাচে টিকে ছিলাম। কিন্তু তারপর আর কোনো সুযোগই কাজে লাগাতে পারিনি।

    মধ্য বিরতির পরে কামিন্স তিন বলে দুই উইকেট তুলে নেন। প্রথমে জনি বেয়ারস্ট্রোকে (৩৮) এলবিডাবব্লিউ’র ফাঁদে ফেলেন। এরপর স্টুয়ার্ট ব্রডকে ৪ রানে বাউন্সারের সহযোগিতায় কট বিহাইন্ডে পরিণত করেন। কামিন্সের আরেকটি বিশাল বাউন্সারে বিপর্যস্ত মেসন ক্রেন ২ রানে উইকেটরক্ষক টিম পেইনের তালুবন্দী হন। এন্ডারসনকে ২ রানে সাজঘরে ফিরিয়ে দিয়ে শেষ করেন আরেক পেসার জস হ্যাজেলউড।

    সংক্ষিপ্ত স্কোর :

    ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংস: ৩৪৬ (রুট ৮৩, মালান ৬২; কামিন্স ৪/৮০)

    অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংস: ৬৪৯/৭ ডি. (খাজা ১৭১, শন মার্শ ১৫৬, মিশেল মার্শ ১০১, ওয়ার্নার ৫৬; মইন আলী ২/১৭০, এন্ডারসন ১/৫৬)

    ইংল্যান্ড দ্বিতীয় ইনিংস (আগের দিন ৯৩/৪) ১৮০/১০ (রুট ৫৮, বেয়ারস্টো ৩৮ : কামিন্স ৪/৩৯, লায়ন ৩/৫৪)

    ফল : অস্ট্রেলিয়া ইনিংস ও ১২৩ রানে জয়ী

    সিরিজ : পাঁচ ম্যাচের সিরিজে অস্ট্রেলিয়া ৪-০ ব্যবধানে জয়ী

    ম্যান অব দ্য ম্যাচ : প্যাট কামিন্স (অস্ট্রেলিয়া)

    ম্যান অব দ্য সিরিজ : স্টিভ স্মিথ (অস্ট্রেলিয়া)

     

    বিডিস্পোর্টস২৪ ডটকম/বিকে


অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

স্পোর্টস ফ্যাশন


প্রবাসী তারকা

জেলা ক্রীড়া সংস্থা

বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮